বাংলাদেশের নির্বাচনে ভারতের সহযোগিতা প্রসঙ্গে বিএনপি: জনগনের স্বত:স্ফুর্ত অংশগ্রহন নিশ্চিত করুন

29
bangladesher_nirbachon

বাংলাদেশের নির্বাচনে ভারত কোন ধরনের সহযোগিতা করতে চায় তা জানতে চেয়েছে বিএনপি। দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন,‘যদি ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারী মার্কা নির্বাচনের মতো অন্যায়কে সহযোগিতা করতে চায় তাহলে দেশের মানুষ মেনে নেবে না। আর যদি যাকে পছন্দ তাকে জনগণ ভোট দেবে সেক্ষেত্রে কোনো সহযোগিতা করতে চায় সেটাকে স্বাগত জানাই।’

বুধবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে ২০ দলের শরিক জাগপা সভাপতি শফিউল আলম প্রধানের স্মরণসভা ও মিলাদ মাহফিলে ড: মোশাররফ এসব কথা বলেন। বিএনপিপন্থি সংগঠন স্বাধীনতা ফোরাম এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

মঙ্গলবার এক অনুষ্ঠানে ঢাকায় নিযুক্ত ভারতের হাইকমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রিংলা বলেন, ‘বাংলাদেশের অনুরোধ পেলে বাংলাদেশের নির্বাচনে যেকোনো ধরনের সহযোগিতার জন্য তৈরি আছে ভারত। তবে কী ধরনের সহযোগিতা লাগবে, সেটা বাংলাদেশকে বলতে হবে।’

এই প্রসঙ্গ তুলে ড. মোশাররফ বলেন, ‘আমাদের প্রশ্ন তারা (ভারত) কোন ধরনের সাহায্য করতে চান? ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারিতে যেভাবে ভারত, তাদের সরকার এবং পররাষ্ট্র সচিব একটি অন্যায়কে প্রশ্রয় দেয়ার জন্য বিশ্বব্যাপী প্রচারণা চালিয়েছেন এবং আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় আনার জন্য সহযোগিতা করেছে সেই ধরনের সাহায্য চাই না। আমরা চাই জনগণ যাকে ইচ্ছা ভোট দেবে সেই পরিবেশ তৈরির জন্য সহযোগিতা।জনগনের স্বত:স্ফুর্ত অংশগ্রহন নিশ্চিত হবে, এমন সহযোগিতাকে স্বাগত জানাই। আবার একটি দলকে গায়ের জোরে ক্ষমতায় আনার জন্য সহযোগিতা করতে চাইলে জনগণ তা কোনভাবেই মেনে নেবে না।’

শফিউল আলম প্রধানের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করে তিনি বলেন,‘শফিউল আলম প্রধান একজন সাহসী নেতা ছিলেন। তিনি ক্ষমতাসীন দলের ছাত্র সংগঠনের দায়িত্বে থাকার পরও সেই দলের দুর্নীতিবাজ মন্ত্রীদের তালিকা প্রকাশ করেছিলেন। তার বিদায়ে আমরা জাতীয়তাবাদী একজন সিপাহী সালারকে হারালাম।’

প্রধানকে নিয়ে স্মৃতিচারণ করে তিনি বলেন,‘শফিউল আলম প্রধান স্পষ্টভাষী ছিলেন। আমরা হয়তো কথা বলার সময় কিছু বাদ দিয়ে দিই। কিন্তু তিনি বিশ্বাস করতেন তাই বলতেন।’

বিএনপিকে সমাবেশ করার অনুমতি না দেয়ার সমালোচনা করে তিনি বলেন,‘বিরোধী দলকে স্তব্ধ করতে চায়। তারা (আওয়ামী লীগ) যা খুশি তাই করছে, ভোট চাইছে। অথচ আমাদের সভা-সমাবেশ পর্যন্ত করতে দেয় না। এটা একটি স্বৈরাচারী সরকারের নমুনা।’

নির্বাচন কমিশনের নির্বাচনী রোডম্যাপ ঘোষণা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আপনারা যত রোডম্যাপই করুন আমাদের শেষ কথা বলে দেই নিরপেক্ষ সরকার ছাড়া কোনো নির্বাচন হবে না। ২০১৪ সালের মতো একদলীয় নির্বাচন আর বাংলাদেশের মাটিতে হবে না, হতে দেয়া হবে না।’

সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য রোডম্যাপ নয়, সহায়ক সরকার প্রয়োজন বলেও দাবি করেন মোশাররফ হোসেন। অবসাদ রোগে ভুগতে থাকা বিএনপি সম্প্রতি প্রকাশ করেছে নতুন রাজনৈতিক কৌশল ভিশন ২০৩০

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি আবু নাসের মো. রহমাতুল্লাহর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি ড. এমাজউদ্দিন আহমেদ, ২০ দলীয় জোটের শরিক জাতীয় পার্টির মোস্তফা জামাল হায়দার, কল্যাণ পার্টির সৈয়দ ইবরাহীম বীরপ্রতীক, লেবার পার্টির ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, বাংলাদেশ ন্যাপের জেবেল রহমান গানি, গোলাম মোস্তফা ভুঁইয়া, জাপগার খন্দকার লুৎফর রহমান প্রমুখ বক্তব্য দেন।

সিটিজিসংবাদ অবলম্বনে

ফোবানি/হামিদ

ফেসবুক থেকে মন্তব্য করুন