প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের প্রয়োজন অনুকুল পরিবেশ-ইউসেপ বাংলাদেশ আয়োজিত শেয়ারিং মিটিং শেষে বক্তারা

65
protobondhi_baktider

সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের কারিগরি শিক্ষায় দক্ষ করে গড়ে তুলে আত্মকর্মসংস্থান ও সহায়ক কর্ম অনুসন্ধানে সহযোগিতা করা বাংলাদেশের শীর্ষস্থানে থাকা বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ইউসেপ বাংলাদেশ প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের জীবনযাত্রার মান উন্নয়নে কাজ করছে।

আন্তর্জাতিক সাহায্য সংস্থা আইএলও কর্তৃক পারসন উইথ ডিজিব্যালিটি শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় ইউসেপ বাংলাদেশ, চট্টগ্রাম সাউথ রিজিয়নের সিডব্লিউআরএ বিভাগ প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের জীবনযাত্রার মান উন্নয়নে বিশেষ করে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের দৈনন্দিন কর্মকান্ডে অংশগ্রহনের উপায় খুজতে এই শেয়ারিং মিটিং এর আয়োজন করে। চট্টগ্রাম শহরে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের নিয়ে কাজ করে এমন শতাধিক বেসরকারি সেচ্ছাসেবী সংস্থার প্রতিনিধিদের অংশগ্রহনে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের জীবনমানের নানাদিক তুলে ধরে ইউসেপ বাংলাদেশ, চট্টগ্রাম সাউথ রিজিয়নের আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক প্রকৌশলী জয় প্রকাশ বড়ুয়া তাঁর স্বাগত বক্তব্যে বলেন,“প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের মৌলিক শিক্ষায় এ্যাক্সেসের সুযোগ নাই। প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের পরিবারই অনুমান করতে পারে কি নিদারুন কষ্টে কাটে তাদের জীবন। আন্তর্জাতিক সাহায্য সংস্থার প্রকল্পের আওতায় ইউসেপ বাংলাদেশ তাদের জীবনমানের উন্নয়নে বিভিন্ন দক্ষতা মুলক প্রশিক্ষন দিয়ে আসছে। শুধু তাই নয়, একজন প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী প্রশিক্ষন গ্রহন করার পর তাদের কর্মসংস্থানেও ইউসেপ বাংলাদেশ কাজ করে যাচ্ছে। মুলত: এ ম্যাসেজটি দিতেই আজকের এই শেয়ারিং মিটিং। এছাড়াও তিনি ইউসেপ বাংলাদেশ কর্তৃক পরিচালিত বিভিন্ন কার্যক্রমের বিস্তারিত বর্ননা দেন।”

“কারিগরি শিক্ষা বোর্ডে ইউসেপ বাংলাদেশ পরিচালিত কারিগরি স্কুলগুলো সেরা”

ilo_ucep_bangladeshআলোচনা, প্রশ্ন ও উত্তরের মধ্য দিয়ে পরিচালিত শেয়ারিং মিটিং এর সঞ্চালনার দায়িত্বে ছিলেন ইউসেপ বাংলাদেশ, চট্টগ্রাম সাউথ রিজিয়নের সিডব্লিউআরএ বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত ডেপুটি প্রোগ্রাম অফিসার প্রবীর দত্ত। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা শংসপ্তক, অগ্রযাত্রা, উৎস, ইপসা, এসওএস শিশু পল্লী, ওয়াল্ড ভিশন, কোডেক, ঘাসফুল , ডিডিআরসি, ব্রাক, বিএনপিএস, বিবিএফ, যুগান্তর, ডিএসকে, মমতা ও বিটা’র প্রতিনিধিগন।

“দেশের এই ভবিষ্যত কারিগরদের গড়তে ইউসেপ বাংলাদেশ ইতিবাচক ভুমিকা রাখছে”- সামসুল আরেফিন

শেয়ারিং মিটিং এর উদ্দেশ্য ছিলো প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের প্রতিবন্ধকতা কাটিয়ে উঠে কারিগরি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষা এবং নানা রকমের বিষয়ে প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণের সুযোগ ও উপায়গুলি খুজে বের করা।

আলোচনার মাধ্যমে উঠে আসে প্রতিবন্ধী ব্যক্তির সফল কাজের জন্য বিভিন্ন ধরনের দক্ষতা প্রয়োজন। ব্যক্তিগত দক্ষতা শিক্ষা ও পারিবারিক জীবন, প্রযুক্তি এবং পেশাদারী দক্ষতা প্রশিক্ষনের মাধ্যমে অর্জিত হয়। একজন ব্যক্তির একটি বিশেষ কার্যকলাপ বা কাজের দায়িত্বগ্রহনে সক্ষমতা, ব্যবসার দক্ষতা স্ব-কর্মসংস্থান ও  জীবনে সফল হতে হবে এই প্রয়োজন বোধ করার মানসিকতা তৈরী করা প্রয়োজন। যেহেতু প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের সেই মেধা, জ্ঞান, মনোভাব এবং গুণাগুণ রয়েছে। এ জন্য সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে।

person_with_disibality

পারসন উইথ ডিজিব্যালিটি জন্মগত হলেও এর থেকে উত্তরনে নিম্নলিখিত অংশীদারদের অন্তর্ভুক্ত করা প্রয়োজন। যেমন – পিডব্লিউআই সংস্থা, সিবিও, যুব গ্রুপ, সিটি কর্পোরেশন, সমাজকল্যাণ বিভাগ, শিশু ও নারী প্রতিবন্ধী বিভাগ, শিক্ষা বিভাগ, শ্রম ও জনশক্তি বিভাগ, নিয়োগকারী কমিটি ও মিডিয়া বিভাগ। এর সাথে সঙ্গতিপূর্ণভাবে, কমিউনিটি ওয়াই-ফাই খেলোয়াড়দের সাথে একটি ভাগ করে নেওয়ার ব্যবস্থা করা যায় যাতে প্রযুক্তিগত ও বৃত্তিমূলক শিক্ষা ও প্রশিক্ষণে পারসন উইথ ডিজিব্যালিটি  অর্থাৎ প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের স্বাভাবিক কর্মকান্ডের অংশগ্রহণে বাধাসমুহ অপসারণের সুযোগ সৃষ্টি হয়।

ফোবনি/ মৃত্তিকা

ফেসবুক থেকে মন্তব্য করুন