কামরাঙ্গীরচর থেকে তুলে নিয়ে বিমানবন্দরে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ, অভিযুক্ত আরিফ পলাতক

112
dorson

রাজধানীর কামরাঙ্গীরচর থেকে এক স্কুলছাত্রীকে তুলে নিয়ে বিমানবন্দর এলাকায় দুদিন আটকে রেখে ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ধর্ষক আরিফ পলাতক রয়েছে এবং বিমান বন্দর এলাকায় অভিযুক্ত আরিফের বাবার একটি মুদি দোকান রয়েছে বলে জানা যায়। আরিফকে ধরতে পুলিশ অভিযান অব্যাহত আছে।

ওই ছাত্রীর ফুফাতো ভাই ও বিমানবন্দর এলাকার এক মুদি দোকানদারও তাকে ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

এ ঘটনায় সোমবার কামরাঙ্গীরচর থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। বিষয়টি জানা-জানি হলে বিমান বন্দর এলাকার সংশ্লিষ্ট বাজারে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ ঘটনাটি গুরুত্বসহকারে দ্রুত তদন্ত করে প্রকৃত অপরাধীকে আইনের আওতায় আনার দাবী করেছেন।

মঙ্গলবার দুপুরে ওই ছাত্রীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে যান ছাত্রীর চাচা ও কামরাঙ্গীরচর থানার কনস্টেবল লতিফা।

মামলার বিবরণীতে উল্লেখ করা হয়েছে, কামরাঙ্গীরচরের স্থানীয় একটি স্কুলের ওই ছাত্রী বাবা-ময়ের সঙ্গে স্থানীয় পোড়াঘাট এলাকায় থাকে।

গত ৪ মে সন্ধ্যা ৭টার দিকে স্কুল থেকে কোচিং শেষে বাসায় ফিরছিল সে। এ সময় পথে তার ফুফাতো ভাই আরিফ (২১) জোর করে তাকে একটি সিএনজিতে তুলে নেয়।

পরে বিমানবন্দর এলাকার একটি বাসায় নিয়ে তাকে দু’দিন ধরে ধর্ষণ করে দুর্বৃত্তরা। পরে ৬ মে দুপুরে তাকে ওই বাসা থেকে বের করে দেয়া হয়।

বিষয়টি স্কুলছাত্রী তার বাবাকে জানালে তিনি তাকে উদ্ধার করে বাসায় নিয়ে যান।

কামরাঙ্গীরচর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) বাবু কুমার সাহা জানান, ওই স্কুলছাত্রীর বাবা কামরাঙ্গীরচরে ভাঙারির ব্যবসা করেন। অভিযুক্ত আরিফের বাবার নাম আবদুল আজিজ। বিমানবন্দর এলাকায় তার একটি মুদি দোকান রয়েছে। কামরাঙ্গীচর এলাকায় ও ঐ ছাত্রীর স্কুলে বিষয়টি নিয়ে ক্ষোভ বিরাজ করছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়।

পরিদর্শক বলেন, ঘটনার পর থেকেই আরিফ পলাতক। তাকে ধরতে পুলিশী অভিযান অব্যাহত আছে।

ধর্ষক আরিফের ছবি সংগ্রহ করা সম্ভব হয়নি। কোন ব্যক্তির কাছে ধর্ষক আরিফের ছবি থেকে থাকলে ফোকাস বাংলা নিউজ বরাবরে আরিফের ছবি পাঠানোর জন্য অনুরোধ করছে। এছাড়াও নারী নির্যাতনের যে কোন ঘটনা, তথ্য, সংবাদ বা প্রতিবেদন ফোকাস বাংলা নিউজ বরাবরে পাঠাতে পারেন। ধর্ষক আরিফের ছবিসহ যে কোন সংবাদ পাঠানোর ঠিকানা fbnews2017@gmail.com

ফোকাস বাংলা নিউজ নীতিগতভাবে ধর্ষিতার ছবি প্রকাশ করে না।

ফোকাস বাংলা নিউজ

ফেসবুক থেকে মন্তব্য করুন