একুশে বই মেলায় লেখিকা লায়ন জয়া জাহান চৌধুরী’র প্রথম উপন্যাস “বাস্তব জীবন” পড়ুন

40
boi pori bastob jibon

বইয়ের সাথে পাঠকদের ভালবাসা বাড়াতেই যেন লেখক লেখিকার ব্যস্ত সময় পার হচ্ছে।তাইতো নতুন ধারায় নতুন নতুন বই উপহার দিয়ে যাচ্ছেন নবীন-প্রবীন লেখকেরা। তারই ধারাবাহিকতায় নিত্য দিনে ঘটে যাওয়া আমাদের রাজনীতির খেলায় রং করা মানুষগুলোর প্রকৃত রুপ,আশা আকাংখায় মেশানো জীবনের সবকটি পর্বকে সাজিয়ে নিয়ে, এ বছর অমর একুশে গ্রন্থ মেলায় বের হয়েছে খ্যাতিমান সাহিত্যানুরাগী ও সমাজসেবী লায়ন জয়া জাহান চৌধুরী’র অন্যতম একটি রহস্যময় উপন্যাস- যার নাম রেখেছে “বাস্তব জীবন’’। রিদম প্রকাশনী থেকে এই উপন্যাসটি প্রকাশ হয়েছে। বইটি পাওয়া যাচ্ছে অমর একুশে বইমেলা-প্রাঙ্গণের ৩৭৬ এবং ৩৭৭ নং স্টলে।

জয়া জাহান চৌধুরীর এক সর্বোত্তম ভাবের সর্বোত্তম শব্দের সর্বোত্তম প্রকাশ ‘বাস্তব জীবন’। লেখাটিতে বর্তমানকালের বাস্তব স্মৃতি বা সোনালী স্বপ্নকে তুলে আনতে সক্ষম হয়েছে। এবং লেখিকার কলমে আঙ্গুলের কোমল রঙে লেপে দিয়েছে অন্য রকম এক অনুভূতি। এ যেন অপুর্ব একটি উপন্যাস বাস্তব জীবন। বাস্তবিক ভাবনার রঙে চমৎকার শব্দ চয়নে এক কথায় সাধারণ ভাষায় অসাধারণ লেখিকার প্রথম উপন্যাসের বহিঃপ্রকাশ। লেখিকা যেন কালো কালিতে অজস্র ভালবাসা,রাজনীতির মায়াজাল,হাসি আনন্দ প্রেমকে ভিন্ন রুপে পাঠকের চোখে তুলে ধরেছেন । সৌন্দর্যের ছন্দোময় অপার এক জীবনের বাস্তব সৃষ্টি রহস্য এঁকেছেন উপন্যাসে তিনি। পাঠকের মনে হবে এ যেন তারই সর্বোত্তম চিন্তা যা ক্রমশ ভেসে উঠছে তার উপন্যাসের প্রতিটি পাতায়। যা পাঠকের কাছে পুর্বের কাব্যগ্রন্থ “বন্ধুত্ব” এর মতো “বাস্তব জীবন” ও বেশ সমাদৃত হবে বলে প্রত্যাশা রেখেছে লেখিকা নিজেই। পাঠকদের আশা ছন্দ-মাত্রা মিলিয়ে সুখ-দুঃখের মিশেলে উপন্যাসটিতে পেয়েছে প্রাণ। পর্যটননগরী কক্সবাজারের লেখিকা জয়া জাহান চৌধুরী। ছোটকাল হতে লেখা লেখির হাতেখড়ি। নিজে কখনো হয়েছে আবেগ কেন্দ্রিক , কখনো অনুভূতিপ্রবণ মনের বহিঃপ্রকাশ, কখনো সমকালের মুখপাত্র, কখনো শাব্দিক ঝংকার। কখনো বেদনাবিধুর হৃদয়ের কান্না, কখনো শোকাহত হৃদয়ের আর্তনাদ, কখনো সংগ্রামী স্বশস্ত্র শব্দ সৈনিক, কখনো বা অধিকার বঞ্চিত শ্রমজীবি মানুষের মুখপাত্র তিনি । রাজনীতির মাঠেও সচল জনসেবিকা। বহুগুনে গুনান্বিত এই লেখিকা। যিনি রাজনীতিবিদ হয়েও একজন কথা সাহিত্যিক,গীতিকার ও সমাজ সেবিকা কেননা ওর নামের সাথে একাধিক বিশেষণ যোগ করা যায়। যে গুনের পুরস্কার স্বরুপ পেয়েছেন বহু সামাজিক সংস্থা ও প্রতিষ্ঠান হতে দেশি বিদেশী পদক ও পুরস্কার। অর্জন করেছেন সুনাম।

আশা করি সকলের কাছে “বাস্তব জীবন” উপন্যাসটি ভালো লাগবে। আজই সংগ্রহ করুন একুশে বই মেলায় সর্বত্রেই পাওয়া যাচ্ছে। স্বাধীন বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী মেলাগুলোর অন্যতম অমর একুশে গ্রন্থমেলা। ১৯৫২ খ্রিস্টাব্দের ফেব্রুয়ারি মাসের ২১ তারিখ বাংলা ভাষার জন্য আত্মোৎসর্গের মতো করুণ ঘটনা ঘটে।

জে, জাহেদ

বিশেষ প্রতিবেদক

ফেসবুক থেকে মন্তব্য করুন