আনিসুল হক আর নেই! একটি সুন্দর আগামীর মৃত্যু!!

115
anisul_haq

ঢাকা উত্তরের সিটি মেয়র আনিসুল হক আর নেই। ইন্নালিল্লাহি ওয়াইন্নাইলাহি রাজিউন।

একটি সুন্দর আগামীর মৃত্যু!! বাংলাদেশের সময় অনুযায়ী বৃহ:স্পতি বার রাতে লন্ডনের চিকিৎসকরা তাঁর কৃত্রিম শ্বাস-প্রশ্বাসের যন্ত্রটি খুলে ফেলেন। আনিসুল হকের পারিবারিক সূত্রের উদ্বৃতি দিয়ে প্রথম আলো সংবাদ ছাপে। ইতিমধ্যে দেশের সবকটি প্রিন্ট মিডিয়ায় এই খবরটি পৌছে গেছে এবং সবাই ব্যস্ত খবরটি শেষ মুহুর্তে হলেও লিড দেয়ার। ইলেকট্রনিক মিডিয়ার স্ক্রলে খবরটি ব্রেকিং নিউজ প্রকাশ করছে। দেশজুড়ে শোকের ছায়া। সোস্যাল মিডিয়ায় চলছে মন্তব্য।

“তোমাদেরকে মৃত্যু দেবে মৃত্যুর ফেরেশতা, যাকে তোমাদের জন্য নিয়োগ করা হয়েছে। তারপর তোমাদের রবের নিকট তোমাদেরকে ফিরিয়ে আনা হবে।” জীবনের শ্রেষ্ট উপহার মৃত্যু নিয়ে ক’জন ভাবে! আনিসুল হক কি ভেবেছিলেন? দেশবাসীও কি ভেবেছিলো? ভাবেনি, ভাবেন নি বলেই আনিসুল হকের অকাল প্রয়ানে আমরা ভাবছি তোমার মৃত্যুর সাথে সাথে হয়তো চিরবিদায় নিলো সুন্দর একটি ঢাকা পাওয়ার স্বপ্নটুকুও।

একজন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব, সফল উদ্যোক্তা এবং সর্বোপরি পরিছন্ন ইমেজের রাজনীতিবিদ আনিসুল হক এই পৃথিবী ছেড়ে চলে গেছেন। এই চলে যাওয়া একদিন প্রত্যেককেই নিশ্চিত করবে সৃষ্টিকর্তা। মানব জীবনে মৃত্যুই শেষ কথা। কিন্তু তাই বলে ভালো মানুষগুলো কেন এত তাড়াতাড়ি চলে যায়!

এক নজরে আনিসুল হক

নাম : আনিসুল হক

জন্ম : ২৭ অক্টোবর ১৯৫২

মৃত্যু : ৩০ নভেম্বর ২০১৭

জন্মস্থান : নোয়াখালী জেলা

নানাবাড়ি : ফেনী জেলা

বাবা : সৈয়দ মঈনুদ্দিন হোসাইন

মা : ফাতেমা জোহরা বেগম

স্ত্রী : রুবানা হক

সন্তান : নাভিদুল হক

নাগরিকত্ব : বাংলাদেশী

ধর্ম : ইসলাম

শিক্ষা : স্নাতক

প্রাক্তন ছাত্র : চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়

পেশা : উদ্যোক্তা, উপস্থাপক, ব্যবসায়ী এবং রাজনীতিবিদ

রাজনৈতিক দল : বাংলাদেশ আওয়ামালীগ

টেলিভিশন উপস্থাপক হিসেবে ১৯৮০ থেকে ১৯৯০-এর দশকে  তিনি ব্যাপক পরিচিতি লাভ করেন। ‘আনন্দমেলা’ ও ‘অন্তরালে’ অনুষ্টান দু’টি ব্যাপক জনপ্রিয়তা পায়। স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনের পর ১৯৯১ সালের নির্বাচনের পূর্বে বিটিভিতে শেখ হাসিনা ও খালেদা জিয়ার মুখোমুখি একটি অনুষ্ঠান উপস্থাপন করেন আনিসুল হক। এরপর ২০০৫ থেকে ২০০৬ সালে বিজিএমইএর সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন এবং ২০০৮ সালে ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআইর সভাপতি নির্বাচিত হন।

চলতি বছরের আগষ্ট মাসে চিকিৎসার জন্য তাঁকে লন্ডনের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তখন তাঁর মস্তিস্কের রক্তনালীর প্রদাহ সেরিব্রাল ভাস্কুলাইটিস ধরা পড়ে। গতকাল ৩০ নভেম্বর রাত ১০.২৩ মিনিটে লন্ডনের ওয়েলিংটন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিলো ৬৫ বছর। স্ত্রী রুবানা হক ছাড়াও তিনি ৩ সন্তানের জনক।

মেয়র অানিসুল হকের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি মো: আব্দুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বিরোধী দলীয় নেত্রী রওশন এরশাদ ও বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া শোক জানিয়েছেন।

তাঁর মৃত্যুতে ফোকাস বাংলা নিউজ পরিবার শোকাহত।

বিশেষ প্রতিবেদক


স্পেশাল ডেস্ক

ফেসবুক থেকে মন্তব্য করুন