আত্মহত্যা রুখে দেবে এই ফ্যান! [ভিডিও]

132
what_is_suicide

তরুণ প্রজন্মের মধ্যে আত্মহত্যা বাড়ছে— এই সত্য হৃদয়ঙ্গেমের জন্য কোনও পরিসংখ্যানের প্রয়োজন পড়ে না। চোখ-কান খোলা রাখলেই আত্মহত্যার খবর আমাদের কাছে ঝাঁপিয়ে আসে। মনোবিদদের বক্তব্য, তরুণদের এই আত্মহননের ইচ্ছা যেমন লেখাপড়া-জনিত স্ট্রেস থেকে জাত, তেমনই এর পিছনে থাকছে ব্যর্থ প্রেম, বাড়ির অতিরিক্ত শাসন ইত্যাদিও আত্মহত্যা প্রবণতাকে সম্ভব করে তোলে।

আত্মহত্যা কি?

আত্মহত্যা মানে নিজকে নিজে ধ্বংস করা। নিজ আত্মাকে চরম যন্ত্রণা ও কষ্ট দেয়া। নিজ হাতে নিজের জীবনের সকল কর্মকাণ্ডের পরিসমাপ্তি ঘটানো।

মানুষ কেন আত্মহত্যা করে?

মানুষ কেন আত্মহত্যা করে সে বিষয়ে দৃষ্টি দেয়া যাক। আত্মহত্যার অনেক কারণ আছে। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলোঃ

১. স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে মনোমালিন্য, যৌতুকের কারনে ঝগড়া বিবাদ

২. পিতা-মাতা ও ছেলে-মেয়ের মধ্যে মনোমালিন্য

৩. পরীক্ষায় ব্যর্থতা,

৪. দীর্ঘস্থায়ী রোগ যন্ত্রণা থেকে মুক্তি পাওয়া

৫. প্রেম-বিরহ, মিথ্যা অভিনয়ের ফাঁদে পড়ে

৬. ব্যবসায়ে বারে বারে ব্যর্থ হওয়া

৭. শক্রর কাছে ধরা না দেয়া ইত্যাদি

যখন জ্ঞান-বুদ্ধি-উপলব্ধি-অনুধাবন শক্তি লোপ পায়, নিজকে অসহায়-ভরসাহীন মনে হয়, তখনই মানুষ আত্মহত্যা করে বসে।

“ভালোবাসা প্রেম সবকালেই হয় তাই বলে বোনাস প্রতারনা ও আত্মহত্যার সংস্কৃতি ফাঁসি দিয়ে নয়”

কেবল তরুণরা নয়, বিবাহিত নারী-পুরুষ, অবসাদগ্রস্ত প্রৌঢ়, কে না আত্মহননকে বেছে নেন! আর আত্মহত্যার যে যে রাস্তা খোলা রয়েছে, তার মধ্যে জনপ্রিয়তম হল সিলিং ফ্যানে গলায় দড়ি। কাউন্সেলিংয়ে কাজ না হলে সহায়তা নিতে হবে প্রযুক্তির, অনেকটা এমন কথাই বলছেন ক্রম্পটন গ্রিভস কোম্পানির অবসরপ্রাপ্ত অ্যাসিস্ট্যান্ট জেনারেল ম্যানেজার শরদ আশানি। এই মুহূর্তে শরদ সংবাদ শিরোনামে। কারণ, তিনি ‘আত্মহত্যারোধক সিলিং ফ্যান’ আবিষ্কার করেছেন।

খেলা গম্ভীর, আত্মহত্যাকামী ব্যক্তি দড়ি, শাড়ি, ওড়না— যা খুশি সিলিং পাখায় বেঁধে ঝুলে পড়ুন না কেন, শরদের ডিজাইন করা পাখায় তাঁর অভিষ্টসিদ্ধি ঘটবে না। পাখাই বাধা দেবে আত্মহত্যায়। এই পাখার আসল কারিগরি লুকিয়ে রয়েছে এর রডে। পাথায় কোনও ভারী জিনিস ঝোলানোর চেষ্টা করলেই এর রড থেকে বেরিয়ে আসবে একটা স্ট্রিং। সেটা পাখাকে নামিয়ে দেবে নীচে। ফলে ‘ঝুলে পড়া’ নামক ঘটনাটি আর ঘটবে না। এই প্রযুক্তি সিলিং পাখায় ফিট করতে খরচাও যৎসামান্য। মাত্র ২৫০ টাকা। সাধারণ পাখার রডটি শরদের ডিজাইন করা রড দিয়ে বদলে দিলেই ব্যস্!

ভারতের রাজস্থানের কোটায় ছাত্রদের আত্মহত্যা রুখতে এই পাখা ব্যবহারের কথা উঠে এসেছে হস্টেলগুলির কর্তৃপক্ষের তরফে। ইতিমধ্যেই বেশ কিছু হস্টেলে এমন পাখা লাগানো হয়েছে বলে জানিয়েছে একটি আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম। প্রসঙ্গত, গত ৬ বছরে কোটায় ৬০জন ছাত্রের গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে।
সূত্র: এবেলা।

 

ফোবানি/মৃত্তিকা

ফেসবুক থেকে মন্তব্য করুন